WB Primary Teachers' Eligibility Test TET 2014 WBBPE WEST BENGAL BOARD OF PRIMARY EDUCATION Primary Teachers Recruitment Official website under WEST BENGAL BOARD OF PRIMARY EDUCATION is www.wbbpe.org

SSCMATH (HONS/PG)
WWW.SSCMATH.COM





Facebook Page
www.facebook.com/wbbpe



MORE PRIMARY NEWS
wbbpe.blogspot.com http://wbresults.in

Indian Railway info
http://ngetirctc.co.in/

  • HIGH COURT ORDER

    NEW HIGH COURT ORDER FOR WBBPE RECRUITMENT

    Kolkata_High_Court

    প্রাথমিক স্কুল

    প্রধান শিক্ষক নিয়োগে জট কাটাল হাইকোর্টই

     anandabazar

    নিজস্ব সংবাদদাতা

    কলকাতা, ২ সেপ্টেম্বর, ২০১৪, ০৩:০৯:৪২

    প্রাথমিক স্কুলের প্রধান শিক্ষক বা প্রধান শিক্ষিকা পদের জন্য প্রার্থীদের এক বছরের প্রশিক্ষণ থাকলেই চলবে, নাকি দু’বছরের হতেই হবে, তা নিয়ে বিতর্ক বেধেছিল। মামলা এবং আপিল মামলাও হয়েছিল উচ্চ আদালতে। সোমবার হাইকোর্টের রায়ে আপাতত কলকাতা জেলার প্রাথমিক স্কুলগুলিতে প্রধান শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে জটিলতা কেটে গেল।

    কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি জ্যোতির্ময় ভট্টাচার্য এবং বিচারপতি তাপস মুখোপাধ্যায়ের ডিভিশন বেঞ্চ এ দিন জানিয়ে দিয়েছে, কলকাতার প্রাথমিক স্কুলগুলিতে প্রধান শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে ন্যাশনাল কাউন্সিল অব টিচার এডুকেশন বা এনসিটিই-র ২০১০ সালের ২৫ অগস্টের বিজ্ঞপ্তি কার্যকর হবে না। ওই বিজ্ঞপ্তিতে প্রধান শিক্ষক পদে নিয়োগের ক্ষেত্রে দু’বছরের প্রশিক্ষণ নেওয়া প্রার্থীদের অগ্রাধিকারের কথা বলা হয়েছিল।

    কলকাতা জেলা প্রাথমিক শিক্ষা সংসদ ৪৪ জন প্রধান শিক্ষকের একটি প্যানেল তৈরি করেছিল ২০১২ সালে। ওই শিক্ষকেরা সহকারী শিক্ষক হিসেবে কলকাতা জেলার বিভিন্ন প্রাথমিক স্কুলে কর্মরত। ওই প্যানেলের বেশ কয়েক জন শিক্ষক-শিক্ষিকা ২০০১ সালের আগে থেকে ২০০৫ সালের মধ্যে চাকরি পান। তাঁদের রাজ্য সরকারের স্বীকৃত প্রতিষ্ঠান থেকে এক বছরের শিক্ষক-প্রশিক্ষণ নেওয়া আছে। তবে তাঁরা বিভিন্ন স্কুলে চাকরিতে যোগ দেন এনসিটিই-র ২০১০ সালের ওই বিজ্ঞপ্তি জারির অন্তত পাঁচ বছর আগে।

    প্রধান শিক্ষকের প্যানেলভুক্ত প্রার্থীদের মধ্যে নীতু সাহা এবং অঙ্কিতা সান্যাল নামে দুই শিক্ষিকা হাইকোর্টে মামলা করে জানান, এনসিটিই ২০১০ সালের ২৫ অগস্ট যে-বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে, সেই অনুযায়ী প্রধান শিক্ষক বা প্রধান শিক্ষিকার পদে নিয়োগের ক্ষেত্রে দু’বছরের প্রশিক্ষণ নেওয়া শিক্ষক-শিক্ষিকাদের অগ্রাধিকার দেওয়ার কথা। হাইকোর্টের বিচারপতি বিশ্বনাথ সমাদ্দার ২০১৩ সালে কলকাতা জেলার প্রাথমিক স্কুলগুলিতে প্রধান শিক্ষক-পদে নিয়োগের ক্ষেত্রে সেই বিজ্ঞপ্তি রূপায়ণের নির্দেশ দেন।

    সিঙ্গল বেঞ্চের সেই নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে ডিভিশন বেঞ্চে আপিল করেন বিষ্ণুপদ ঘোষ-সহ বেশ কয়েক জন প্রার্থী। এ দিন সেই আপিল মামলারই রায় দেওয়া হয়। বিষ্ণুপদবাবুদের আইনজীবী এক্রামুল বারি জানান, ডিভিশন বেঞ্চ যে-নির্দেশ দিয়েছে, তাতে রাজ্যের প্রাথমিক স্কুলগুলিতে প্রধান শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে এই ধরনের জটিলতা থাকলে তার সুরাহা হবে।


    হাই কোর্টের নির্দেশে কাটল প্রাথমিকের নিয়োগ জট

    01.09.2014 | 5:54 অপরাহ্ন |

    SOURCE   kolkata24x7.com

    kolkata24x7logo

    কলকাতা: প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে জটিলতা কাটল হাই কোর্টের নির্দেশে। সোমবার কলকাতা হাই কোর্টে এই সংক্রান্ত মামলার শুনানি ছিল। এনসিটিই শিক্ষক-শিক্ষণ কেন্দ্রগুলিকে যে অবৈধ বলে ঘোষণা করেছিল, তার জন্য বিপাকে পড়েছিলেন বেশ কয়েকজন আবেদনকারী। সেই মামলার শুনানিতে এদিন বিচারপতি আবেদন বৈধ বলে উল্লেখ করেন।
    প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে আইনি জটিলতা তৈরি হয়েছিল। যে-সব আবেদনকারী ২০০৪-’০৫ শিক্ষাবর্ষে প্রশিক্ষণ নিয়েছিলেন তাঁরা কলকাতা হাইকোর্টে এই মামলা করলেন। অভিজিৎ মণ্ডল-সহ ২৫ জন আবেদনকারী আদালতে জানান, ২০০৬ সালে হাইকোর্টের তৎকালীন প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ রাজ্যের ১২৪টি প্রাথমিক শিক্ষক শিক্ষণ কেন্দ্র এবং বিএড কলেজকে অবৈধ বলে ঘোষণা করে। কারণ ওই সব প্রতিষ্ঠানে এনসিটিই-র অনুমোদন ছিল না। তৎকালীন বামফ্রন্ট সরকার সমস্যা মেটাতে কেন্দ্রের দ্বারস্থ হয়। এনসিটিই জানায়, হাইকোর্ট বিভিন্ন শিক্ষক শিক্ষণ কেন্দ্রকে অবৈধ বলে রায় দেওয়ার আগে যাঁরা এক বছরের প্রশিক্ষণ নিয়েছেন, তাঁদের সেই যোগ্যতা বৈধ। বিচারপতি সৌমিত্র পালের এজলাসে এনসিটিই-র সেই নির্দেশ দেখিয়ে আবেদনকারীরা বলেন, তাঁরা উচ্চ মাধ্যমিক উত্তীর্ণ। টেট-এর জন্য আবেদন জমা দিয়েছেন। ডিভিশন বেঞ্চ একটি রায়ে বলেছে, টেট-উত্তীর্ণদের জন্য দু’টি পৃথক তালিকা তৈরি করতে হবে। একটি প্রশিক্ষিতদের, অন্যটি বাকিদের। প্রশিক্ষিতদের তালিকার সকলে নিযুক্ত হওয়ার পরেও পদ শূন্য থাকলে অন্য তালিকা থেকে নিয়োগ করা যাবে। প্রশিক্ষিতদের তালিকায় তাঁদেরও অন্তর্ভুক্ত করার জন্য আদালতে আর্জি জানান আবেদনকারীরা। এদিন শুনানিতে বলা হয়, ওই সব আবেদনকারীদের আবেদন বৈধ।

     

    OLDER ORDER

     HIGH COURT ORDER FOR CANCEL PANEL HOWRAH PRIMARY RECRUITMENT 2010 AND NEW EXAM WITH RECRUITMENT WITHIN 3 MONTHS : Source: Kolkata TV

    Details not available.

    19-12-2012:  Stay order is withdrawn. Exam will be held accordingly. Result will be published separately for trained and non-trained candidates. Priority will be given on trained candidates.

    Exam Date WBBPE: 31st March 2013 

    Result Link: http://wbresults.nic.in/primary_result/primary.htm
    Exam centre IS given CLICK HERE http://wbbpe.org/TETvenue.aspx

    For latest updates visit regularly this website www.wbbpe.in

    Write your roll number SMS it to 56767 or 56161 to know your exam center/venue through SMS.

    Previous News

    13th December 2012: High Court interim Stay Order on West Bengal Primary TET

    WB Primary TET Stay Order.

    The Calcutta High Court on Thursday(13-12-2012) order a stay on primary teacher recruitment examination.

    On October 17, the state government had issued a notification for recruitment of over 34,000 primary school teachers across the state. Vacancies increased to 50,000.

    Over seven hundreds “trained” candidates filed a plea in the High Court saying the notification violated the legal provision framed by the National Council For Teachers Education (NCTE).

    The Calcutta High Court on Thursday(13-12-2012) order a stay on primary teacher recruitment examination.

    Solution:

    Possibility of separate exams for trained (D.Ed) and non-trained candidates in West Bengal Primary Teacher Recruitment 2012-2013.

    Visit the website www.wbbpe.in regularly for latest updates on West Bengal Primary School Teacher Recruitment.

    Published on September 1, 2014 · Filed under: High Court Order;
    1 Comment

One Response to “HIGH COURT ORDER”

  1. BUDDHADEB DAS said on

    i want to result

Leave a Reply